Become a member

Get the best offers and updates relating to Liberty Case News.

― Advertisement ―

spot_img

কমরেড গোলাম রসুল মন্ডল প্রয়াত

সিপিআইএম পার্টির বাদুড়িয়ার প্রাক্তন এলসিএম ও কৃষক সবার ব্লক কমিটির সদস্য কমরেড গোলাম রসুল মন্ডল প্রয়াত হলেন । মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল আনুমানিক...
Homeকলকাতাঅশান্তি রুখতে সিসি ক্যামেরায় মুড়বে সব ধর্মীয় স্থান, নির্দেশ

অশান্তি রুখতে সিসি ক্যামেরায় মুড়বে সব ধর্মীয় স্থান, নির্দেশ

অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শহরের সব সংবেদশীল এবং ধর্মীয় স্থানকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনার জন্য থানাগুলিকে নির্দেশ দিল লালবাজার।

পুলিশ সূত্রের খবর, প্রতিটি থানা এলাকার কোথায় কোথায় ওই ক্যামেরা বসানোর প্রয়োজন আছে, সম্প্রতি তাদের কাছে সেই তথ্য জানতে চেয়েছিলেন পুলিশকর্তারা। সেই মতো থানাগুলির তরফে ওই তথ্য লালবাজারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রাথমিক এই তালিকায় বলা হয়েছে, প্রায় ২৫০টি জায়গায় সিসি ক্যামেরা বসানো দরকার। এক পুলিশকর্তা জানান, ওই তালিকা মেনেই সংবেদশীল এবং ধর্মীয় স্থানের চার পাশে ক্যামেরা বসানোর জন্য সংশ্লিষ্ট ডিভিশনের উপ-নগরপালদের বলা হয়েছে। থানাগুলিকে বলা হয়েছে, দ্রুত এই কাজ সম্পূর্ণ করার জন্য।
ক্যামেরা বসানোর টাকা পরে লালবাজারের তরফে থানাগুলিকে দিয়ে দেওয়া হবে।

পুলিশের দাবি, ধর্মীয় কিংবা সংবেদনশীল এলাকায় কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে যাতে তার উৎসে পৌঁছনো যায়, সে জন্যই এমন সিদ্ধান্ত। প্রসঙ্গত, সম্প্রতি উত্তর কলকাতার এক ধর্মীয় স্থানে একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছিল। যার জেরে সেখানে দেখা দিয়েছিল আইনশৃঙ্খলাঘটিত সমস্যা। ওই ঘটনার তদন্তে নেমে প্রাথমিক ভাবে মুশকিল পড়তে হয়েছিল পুলিশকে। কারণ, ঘটনাস্থলের আশপাশে কোনও সিসি ক্যামেরা ছিল না। সূত্রের খবর, এর পরেই কলকাতার নগরপাল শহরের সব ধর্মীয় এবং সংবেদনশীল এলাকায় সিসি ক্যামেরার নজরদারি আছে কি না, তা জানতে চান। সেই মতো তৎপর হয় লালবাজার এবং থানাগুলির কাছে নির্দেশ পৌঁছয়।

পুলিশের একটি সূত্র জানাচ্ছে, গত বছর শহরের বিভিন্ন ধর্মীয় স্থানে জরুরি ভিত্তিতে সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছিল। সেগুলি কী অবস্থায় রয়েছে, তা-ও খোঁজ নিয়ে দেখার জন্য থানাগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে প্রাথমিক ভাবে এর বাইরে আর কোথাও ক্যামেরার নজরদারি দরকার আছে কি না, তা জেনে নিয়ে ধর্মীয় প্রাঙ্গণ এবং আশপাশে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করতে বলা হয়েছে। এর পাশাপাশি কাল, বুধবার রামনবমীকে কেন্দ্র করে যাতে কোথাও কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয়, তার জন্যও সতর্ক করা হয়েছে সব থানাকে।